প্রিয় স্বদেশে এডভোকেট সাহারা খাতুন

গতকাল শনিবার ১৩ এপ্রিল ২০১৯ ইং তারিখে ঢাকা-১৮ আসনের সংসদ সদস্য, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সংসদের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য এবং সাবেক মন্ত্রী জনাবা এডভোকেট সাহারা খাতুন সকাল ৮:৩০ মিনিটে যুক্তরাষ্ট্রে পারিবারিক সফর শেষে ঢাকা হযরত শাহজালাল আর্ন্তজাতিক বিমান বন্দরে তার প্রিয় স্বদেশে ফিরে আসেন। বিমানবন্দরে মাননীয় সংসদ সদস্যকে অভ্যর্থনা জানানোর জন্য ঢাকা-১৮ আসনের অর্ন্তভুক্ত সকল থানা-ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ, সকল অঙ্গ-সহযোগী ও ভাতৃপ্রতিম সংগঠনগুলো, ওয়ার্ড কাউন্সিলরগন, ব্যবসায়ী সমিতির প্রতিনিধিগন, উত্তরা সেক্টরসমূহের কল্যান সমিতি’র নির্বাহী ব্যক্তিগনসহ বিপুল সংখ্যক নেতা কর্মী ও স্থানীয় জনগন সকাল থেকে অপেক্ষমান থাকেন। অতঃপর তিনি বিমান বন্দরের সকল আনুষ্ঠানিকতা সমাপ্ত করে ভিআইপি গেট দিয়ে তার প্রিয় জন্মভূমি বাংলাদেশের মাটি স্পর্শের আনন্দময়-পুলকিত অভিব্যাক্তির সন্ধিক্ষণে সেখানে সমবেত হওয়া সকলেই সমস্বরে জয় বাংলা-জয় বঙ্গবন্ধু ও অভ্যর্থনা এবং শুভেচ্ছামূলক স্লোগানে তাকে বরন করে নেন।সমবেত সকলকে তিনি ধন্যবাদ জানিয়ে সুস্থ্য ও নিরাপদে সবার মাঝে ফিরে আসার জন্য মহান আল্লাহ্’র দরবারে শোকরিয়া জ্ঞাপন করেন। অতি সংখ্যক নেতা কর্মী ও ভক্তবৃন্দের মধ্যেও মাননীয় সংসদ সদস্য সাধ্যমত অভ্যর্থনা সমাবেশটিতে উপস্থিত থাকা জেষ্ঠ্য ব্যাক্তিবর্গের সাথে কুশল বিনিময় করেন। সমাবেশে তিনি সংক্ষিপ্ত বক্তব্য প্রদান শেষে সকলকে বিদায় জানিয়ে বিমান বন্দর ছেড়ে বিশ্রামের উদ্দ্যেশে তার বাসভবনে রওয়ানা দেন। একইদিন, সন্ধ্যার পর হতে জনাবা সাহারা খাতুন তার সংসদীয় ঢাকা-১৮ আসনের সরকারী-বেসরকারী বিভিন্ন শ্রেনী পেশার ব্যাক্তিবর্গ, সংগঠন ও দলীয় নেতা কর্মীদের সঙ্গে বিদেশ সফর উত্তর সৌজন্য সাক্ষাত গ্রহন এবং বাঙ্গালীর চিরায়ত সার্বজনীন বর্নিল উৎসব ‘বাংলা নব বর্ষ ১৪২৬’ এর অগ্রীম শুভেচ্ছা বিনিময়ের জন্য বাসভবনে সকলের সঙ্গে বয়ে আনা ভালবাসা ও শ্রদ্ধা’র প্রতীকি উপহার ফুলের তোড়া গ্রহনের মাধ্যমে উৎসবের আমেজে মধ্যরাত পর্যন্ত আনন্দময় সময় ব্যায় করেন।  মাননীয় সাংসদের বাসভবনে উক্ত শুভেচ্ছা বিনিময় সাক্ষাতপর্বের অনুষ্ঠানটিতে উপস্থিত সকলেই সুস্থ্য ও নিরাপদে তিনি বিদেশ সফর সম্পন্ন করতে পারার জন্য বিশেষভাবে মহান আল্লাহ্’র দরবারে শোকরিয়া প্রকাশ করেন; পাশাপাশি, শুভ ও মঙ্গলের বার্তা বয়ে নিয়ে আসা বাংলা ‘নতুন বর্ষ ১৪২৬’ আগমনী আনন্দের পূর্বক্ষণে ‘চৈত্র সংক্রান্তি’ কিংবা ‘পহেলা বৈশাখ’ উপলক্ষ্যে বর্নিল ফুলেল শুভেচ্ছা’র সাথে তার সুস্বাস্থ্যও সকল শুভাকাঙ্খীরা প্রত্যাশা করেন।